Business

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

আজকে আমাদের এই লেখার ভিতরে আপনাদের সাথে আলোচনা করব যে , কি ভাবে অ্যামাজন  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করবেন সেই বিষয় নিয়েই আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  সম্পর্কে , আজকে আমি আপনাদের সাথে A To Z আলোচনা করব  কি ভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  এর কাজ করে সেই বিষয় নিয়েই আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব ।অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন 

 Make Money From Amazon Affiliate Marketing

এই লেখাটি যাদের জন্য?

 আপনাদের জন্যই! হ্যাঁ, আপনাদের জন্যই যদি আপনারা  সৎ হন তার পরে যদি , সাহসী আর  পরিশ্রমী হয়ে থাকেন আর যদি চ্যালেঞ্জ গ্রহণে কোন সমস্যা না থাকে তা হলেই তা হলে কিন্তু আপনাদের জন্যই আমাদের আজকে এই  টিউটোরিয়াল

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন,এই টিউটোরিয়াল কাদের জন্য না জেনে নিন ?

 

আপনাদের জন্য না যদি আপনারা

  •  সহজ রাস্তায়  ইনকাম করার রাস্তা খুঁজে থাকেন  
  •  কম সময় এর ভিতরে যদি আপনারা   ইনকাম করার ইচ্ছা করেন 
  •  কষ্ট না  করেই  যদি ইনকাম করার আশা করে থাকেন  
  •  কাজ করার জন্য যদি মন মানসিকতা না থেকে থাকে 
  •  শর্টকাট রাস্তেতেই যারা  বড়লোক হওয়ার আশা করেন 
  •  যদি আপনারা  অলস হয়ে থাকেন , কাজ করতে ইচ্ছা না করেন 
  •  যদি আপনারা  চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পছন্দ না করেন 

 

এই বারে এখন আপনারা  – সিদ্ধান্ত নিয়ে নেন যে  এই টিউটোরিয়াল আপনাদের জন্য, না  আপনাদের জন্য না ?

 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  কি?

 

 এফিলিয়েট মার্কেটিং  হল কোন একটা কোম্পানির   প্রডাক্ট  কিংবা সার্ভিস বা সেবা  বিক্রি করে  দেওয়া   আর আপনারা যে তাদের প্রোডাক্ট গুলো বের করে দিবেন তার বিনিময়ে কিন্তু আপনার  একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে  কমিশন পাবেন আর এটা কি কিন্তু মূলত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  বলা হয়ে থাকে   মনে করেন যে , আপনাদের একটা ওয়েবসাইট আছে , আর সে খানে আপনারা প্রতিদিন বিভিন্ন ডিজিটাল প্রোডাক্ট আর গ্যাজেটস নিয়ে লেখালেখি করেন  

 আপনারা যদি আপনাদের ওয়েবসাইটে একটা প্রোডাক্ট রিভিউ লিখলেন  আর আপনাদের প্রোডাক্ট রিভিউ নিচে অর্থাৎ আপনার প্রোডাক্ট রিভিউ ণিচে কনটেন্ট লিখছেন  সে রিভিউ এর নিচে যদি  কোন একটা প্রোডাক্টের লিংক দিয়ে দেনতাহলে আপনারা কিন্তু , অর্থাৎ আপনার  লিংক থেকে কেউ যদি কোন প্রোডাক্ট কিনে তাহলে কিন্তু আপনারা  নির্দিষ্ট পরিমান একটা কমিশন পেয়ে যাবেন   আপনি যে প্রোডাক্ট বিক্রি করবেন সে প্রোডাক্ট এর উপর নির্ভর করে পাঁচ থেকে দশ পার্সেন্ট পর্যন্ত একটা কমিশন দিবে আপনাদের   

 

আপনাদেরকে আরও ভালো ভাবে বুজিয়ে বলতেছি – 

 যখন আপনাদের ভিতরে কেউ  টি কমার্স প্রতিষ্ঠান এর  কোনো প্রোডাক্ট এর  রিভিউ লিখবেন তার পর কিন্তু  আপনাদের সেই রিভিউ দেখেই , কোনো ক্লায়েন্ট যদি সেই প্রোডাক্টটি  কিনে  নিবেন    

 তা পরে কিন্তু   সেই কমার্স প্রতিষ্ঠান হতে   আপনাদের  তারা নির্দিষ্ট পরিমান টা কমিশন দিবে মূলত এটাই হল   অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর মূল বিষয়বস্তুু। আরেকটু ভালোভাবে বললে বলা যায় যে

বর্তমানে Daraz হচ্ছে কিন্তু  আমাদের দেশ এর ভিতরে খুব  জনপ্রিয় টি কমার্স প্রতিষ্ঠান। মনে করেন যে  আপনারা  Daraz এর টি মোবাইল এর রিভিউ লিখলেন আপনাদের ওয়েবসাইটে

 

যেমন মনে করুন যেসেই মোবাইল  দেখতে কি রকমের হবে ,দাম যে রকমের সেই হিসেবে  ভালো সাউন্ড আসতেছে কিনা   সেই মোবাইলটিকে ব্যবহার করাআসলে  ঠিক হবে কিনা এই সকল  বিষয় গুলো সম্পর্কে মনে করেন আপনাদের ওয়েবসাইট ১টা    একটা রিভিউ লিখে পাবলিশ করলেন  

এখন আপনাদের সেই রিভিউটাকে  দেখে যদি  কেউ সেই মোবাইলটিকে কিনে নেয়। তাহলে দারাজ আপনাদেরকে কিছু পরিমাণ টাকা কমিশন হিসেব   প্রদান করে দেবে আপনারা  যে  টাকাটা  কমিশন হিসেব   পাবেন এইটাই কিন্তু আসলে মূলত হল  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

 এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে  পারে যে, “আপনাদের রিভিউ দেখে যদি কেউ প্রোডাক্টটিকে পছন্দ হয়ে গেলে  কিনে নিয়েই থাকে   তা হলেসেটা কমার্স প্রতিষ্ঠান কি করে  বুঝতে পারবে ?” যদি  আপনাদের মনের ভিতরে  সেই প্রশ্ন জেগে গিয়ে থাকে আর তাই যদি হয়ে থাকে তা হলে আপনারা আমাদের এই লেখাটিকে সম্পূর্ণ খেয়াল দিয়ে পরুন তাহলেই সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন শুধুমাত্র পরিশ্রমী আর তার সাথে সাথে  সৎ যারা তারাই কিন্তু আসলে আমার এই পদ্ধতি এর ধারা  ইনকাম করা শুরু করতে  পারবে, ইনশাল্লাহ।অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন.Click here

 

 Read More-

 

অন পেজ এসইও শেখার বইটি ফ্রীতে ডাউনলোড করে নিন

পরিক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জনের টেকনিক বইটি ফ্রিতে ডাউনলোড করে নিন

Never Stop Learning বইটি ফ্রিতে ডাউনলোড করে নিন 

তারাতারি ইংরেজি শেখার সহজ উপায় জেনে নিন

অ্যামাজন  হল সারা  বিশ্বের ভিতরে  সব থেকে  বড় কমার্স এর ওয়েবসাইট। বিগ ফোরের ভিতরে টি। গুগুল, ইউটিউব, ফেসবুক আর অ্যামাজন    – এই টি বড় সাইট এর ভিতরে কিন্তু আসলে অ্যামাজন টি। রিভিনিউ এর ক্ষেত্রে   দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে আছে অ্যামাজনে কিন্তু   হাজার হাজার প্রোডাক্ট সেল হয়ে থাকে প্রতিদিন রিভিনিউ আসতে থাকে   মিলিয়নমিলিয়ন। আমাজন বিজনেসটাকে পদ্ধতি এর ধারা  পরিচালনা করে থাকে তারা

 এক, অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Amazon Affiliate Marketing) আর নাম্বারে  হলঅ্যামাজন  সেলার মার্কেটিং (Amazon seller Marketing) এর মাধ্যমে। আর এই   পদ্ধতিতেই কিন্তু আসলে  অ্যামাজন  ব্যবসা পরিচালনা করতেছে এত দিন ধরে টি ব্লগ সাইট অথবা   ওয়েবসাইট হতে কিন্তু  বিজনেস করতে ইচ্ছা করলেই  অ্যামাজন এর   প্রোডাক্ট মার্কেটিং করেই কিন্তু আপনারা আপনাদের  বিজনেস পরিচালনা করা শুরু করে দিতে  পারেন আজকে থেকেই সঠিক করে   ইউটিলাইজ করতে পারলেই কিন্তু আসলে অ্যামাজন   মার্কেটপ্লেস হতে আপনারা   হাজার হাজার ডলার ইনকাম করে নিতে পারবেন  

 প্যাট ফ্লিন নাম এর জন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  করে প্রত্যেক  মাসে  প্রায়  আয় করেতেছেন  প্রায় এক কোটি টাকা। অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

 

 অনলাইনে  ঘাটা ঘাটি করলে কিন্তু  এই রকমের  আর অনেক পেয়ে যাবেন আপনারা মজার ব্যাপার হল   যে : টিটিতে তো অনেক আর্নিং করার পদ্ধতি দেখেছেন। কিন্তু আপনাদের ভিতরে আসলে অনেক এই  জানেন না যে কার সব থেকে বেশি টাকা ইনকাম করে ? কারা অনলাইন জগতের  রাজা? হ্যাঁ, ঠিকই ধরতে পেরেছেনঅ্যাফিলিয়েট   মার্কেটাররা যারা  আছে তারাই কিন্তু আসলে অনলাইন জগতের  রাজা। তারাই সব থেকে  বেশি পরিমানে রোজগার করে থাকে অর্থাৎ টাকা আয় করে থাকেন সব থেকে বড় কথা হল যে  আমাদের দেশে কিন্তু সেটাই হচ্ছে  

হ্যাঁ, হয়তো  আপনারা এতো ক্ষণ ধরে  ভেবেছেন যেবিদেশী যারা আছেন তারা  তো সবসময়তেই  কোটি কোটি টাকা আয় করে থাকেন কিন্তু আমরা   বাংলাদেশের  মানুষ, আমরা কি করতে পারবআমি ব্যক্তিগত ভাবে  আপনাদের বলতেছি বাংলাদেশ এর  অনেক অ্যাফিলিয়েট    মার্কেটারকে   চিনি যাদের ইনকাম প্রায় প্রত্যেক  মাসেই  ২০ লক্ষ থেকে ৪০ লক্ষ টাকা। আপনাদের হয়তো  বিশ্বাস হচ্ছে  না? ভাবতেছেন কি কারনে  তারা তাদের  ইনকাম এর রিপোর্ট আপনাদের সাথে প্রকাশ করেন   না? কী মনে হয় আপনারআমাদের বাংলাদেশ এই পরিবেশ কিন্তু আপনারা  যখন মাত্র লক্ষ টাকা   প্রত্যেক মাসে ইনকাম করতেন আপনারা  নিজেদের  ঘরে বসেই   ; তা হলে  আপনারা কি সেটাকে প্রকাশ করতেন? আমার মনে হচ্ছে  না করতেন না সুতরাং করে না।

তবে সবাই যে করে না, তা কিন্তু না যারা ট্রেনিং করিয়ে থাকেন কিংবা  স্টার হওয়ার ইচ্ছা করে থাকেন তারা কিন্তু কেউইদানিং তাদের যে আর্নিং হয়ে থাকে সেইটার রিপোর্টের স্ক্রিনশট ফেসবুক এর ধারা শেয়ার করে থাকেন

 কিন্তু  আমার কোন ইচ্ছা  নাই আসলে  এই রকমের  আর্নিং রিপোর্ট প্রকাশ করে নিজেকে স্টার বানানোর   কেননাপেইড টিউটোরিয়াল কিংবা  পেইড ট্রেনিং আমি কোন সময়তেই আপনাদেরকে করাবো না  ।গ্যারান্টি এটাআমি কখনও শিখিয়ে তার পরে কারো  কারও কাছ হতে কোন অর্থ নেব না আপনাদের যদি  পছন্দ হয়ে থাকে তা হলে আপনারা  ফ্রি টিউটোরিয়াল হতেই  শিখে নেন , আর তা না হলে না অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button